ঢাকা সোমবার, ফেব্রুয়ারী ২৬, ২০১৮



উৎসব আয়োজনে বিশার্পের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি উদযাপন

ফজলুল হক, নিজস্ব প্রতিবেদক : ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা, সফলতা, আর সহস্র প্রাণের ভালোবাসায় দুই বছর পেরিয়ে তৃতীয় বর্ষে পদার্পন করেছে বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের এইচআর, এডমিন ও কমপ্লায়েন্স পেশাজীবিদের শীর্ষ সংগঠন “বাংলাদেশ সোসাইটি ফর অ্যাপারেল হিউম্যান রিসোর্স প্রফেশনালস (BSAHRP) । আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় (২৯ ডিসেম্বর ২০১৭) রাজধানীর উত্তরাস্থ সী শেল হোটেলে উৎসবমূখর আয়োজনে দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি উদযাপন করলো সংগঠনটি। 

সন্ধ্যায় কেক কাটার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুরু হয়। এতে সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ ও সদস্যদের উপস্থিতিতে বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানটি পোশাক শিল্প পেশাজীবিদের প্রাণবন্ত মিলনমেলায় পরিণত হয়। 

সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক মি. মোহাম্মদ আলী হোসাইনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি মি. কে.এম. মাহতাবুদ্দিন, সহ-সভাপতি লেফটেন্যান্ট কর্ণেল মি. মনোয়ারুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মি. নূরে এ. খান, কোষাধ্যক্ষ মি. হানিফুর রহমান, সহ-সাধারণ সম্পাদক মি. এমএ হাসেমসহ সংগঠনের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ ও আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ । 

শুভেচ্ছা বক্তব্যে সভাপতি মি. কে.এম. মাহতাবুদ্দিন অনুষ্ঠানে আগত সকল অতিথি ও সদস্যদের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, সংগঠনের বার্ষিক রিপোর্টের কিছু ছবি দেখে বিশার্পের সকল কার্যক্রমের ধারাবাহিকতা ও অর্জন অনুভব করা যায়। সংগঠনটির উত্তরোত্তর সফলতা অর্জনে আমি বিস্মিত ও আনন্দিত। মি. খান ও মি. হাসেমসহ সংগঠনের সকল পরিশ্রমী ও উদ্যোমী মানুষদের অক্লান্ত পরিশ্রম আর প্রচেষ্টায় বিশার্প এগিয়ে যাচ্ছে। আজকের দিনে আমি তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই। 

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মি. নূরে এ খান বলেন, বিভিন্ন কারণে ২০১৭ সাল বিশার্পের জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবে। দ্বিতীয় বর্ষের পথচলায় সংগঠনটির অর্জনের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছে। সমাজকল্যাণ অধিদপ্তরের অধীনে সোস্যাইটি অ্যাক্টের আওতায় বিশার্প সরকারীভাবে অনুমোদনপ্রাপ্ত হয়েছে।  গেটটুগেদার ও ফ্যামিলি ডে’সহ বিভিন্ন আনন্দঘন আয়োজনের মধ্য দিয়ে সংগঠনের সদস্যদের মাঝে সম্প্রীতির বন্ধন আরো দৃঢ়তা পেয়েছে।  সদস্যদেরকে দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে নিয়মিত প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়েছে। বিশার্প বিভিন্ন কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে যেমন পোশাক শিল্পের জন্য অবদান রেখে চলেছে অন্যভাবে বিভিন্ন মানবিক ও সামাজিক কার্যক্রমে অংশ নিয়েও সুনাম অর্জন করেছে। সকল নেতৃবৃন্দ ও কার্যকরী সদস্যদের অকৃত্রিম ভালোবাসা আর প্রচেষ্টায় বিশার্প আজ সকলের সুপরিচিত একটি সংগঠনে রুপ পেয়েছে। সংগঠনের সদস্য না হলেও এর অ্যাক্টিভিটি পৌছেঁ গেছে সবার কাছে। 

তিনি  বলেন, শিল্পের উন্নয়ন ও পেশাগত ক্যারিয়ারের উন্নয়নে একটি শক্তিশালী পেশাজীবি সংগঠনের ব্যাপক ভুমিকা রয়েছে। বিশার্প থেকে ক্যারিয়ার ডেভলপমেন্টের প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে সদস্যরা দেশের শিল্পের জন্য কাজ করছে। অন্য দিকে সংগঠনের দিক নির্দেশনা ও সহযোগিতায় সদস্যরা যোগ্যতা ও দক্ষতার বিচারে পদোন্নতি ও ভালো কর্মস্থল ও অধিক সুযোগ সুবিধা পাচ্ছে। ২০১৭ সালে শুধুমাত্র উচ্চ পর্যায়ে প্রায় ৩৫ জন সদস্যের চাকরীর ব্যবস্থা করা হয়েছে। যা সংগঠনের সফলতায় ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে।  

মি. খান আরো বলেন, পৃথিবীর মধ্যে বাংলাদেশ একটি ব্যাপক সম্ভাবনাময় দেশ। পরিসংখ্যান মতে এদেশের উদীয়মান তরুণই বেশি। আমাদের এই সুযোগ কাজে লাগাতে হবে। তরুণ পেশাজীবিদের জন্য আদর্শ প্লাটফর্ম হতে পারে বিশার্প। আগামী মার্চ ২০১৭ তে সংগঠনের নির্বাহী পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। প্রত্যাশা করছি, তরুণ উদ্যোমীরা সৎ সাহস আর সংগঠনের জন্য কাজ করার প্রত্যয় নিয়ে নব কমিটির নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন। 

মি. হাসেম তার বক্তব্যে বলেন, বিশার্পের সকল সদস্যদের যেকোনো প্রয়োজনে সাড়া দিতে সংগঠনের বিশেষ হেল্প ডেস্ক ও লিগ্যাল এডভাইজার থাকবে। এছাড়া সদস্যদের নিরাপত্তার জন্য হেলথ এন্ড লাইফ ইনসুরেন্স করা হবে। 

এসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত অন্যান্য নেতৃবৃন্দ, অতিথিবৃন্দ ও সাধারণ সদস্যরা বিশার্পের দ্বিতীয় বর্ষ পূর্তিতে শুভেচ্ছা ও আগামী বছরের বিভিন্ন প্রত্যাশা ব্যক্ত করে বক্তব্য রাখেন। 

পরে নৈশভোজ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।  

Write a comment

Print Friendly, PDF & Email

এই বিভাগের আরও খবর


Like us on Facebook