ঢাকা শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০



“মজুরি নিয়ে ত্রিপক্ষীয় সভা শ্রমিকদের হতাশ করেছে”- গার্মেন্ট টিইউসি

ডেস্ক রিপোর্ট: গার্মেন্ট শ্রমিকদের এপ্রিল মাসের বেতন প্রসঙ্গে আজ সোমবার রাজধানীর শ্রম ভবনে শ্রম প্রতিমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ত্রি-পক্ষীয় সভা ফলপ্রসূ হয়নি বলে বিবৃতি দিয়েছে গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র (টিইউসি)।

গার্মেন্ট টিইউসির সভাপতি মন্টু ঘোষ ও সাধারণ সম্পাদক জলি তালুকদার স্বাক্ষরিত এ সম্পর্কিত বিবৃতিতে বলা হয়, সভায় এপ্রিল মাসের শতভাগ মজুরি পরিশোধের বিষয়ে শ্রমিকপক্ষ তাদের দাবি উত্থাপন করলেও মালিকেরা যেকোনোভাবে মজুরি কর্তনের বিষয়ে অনড় অবস্থান নিয়েছেন। ফলে এ সভা শ্রমিকদের হতাশ করেছে।গার্মেন্ট শ্রমিকদের এপ্রিল মাসের বেতন প্রসঙ্গে গতকাল সোমবার রাজধানীর শ্রম ভবনে শ্রম প্রতিমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ত্রি-পক্ষীয় সভা ফলপ্রসূ হয়নি বলে বিবৃতি দিয়েছে গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র (টিইউসি)।

গার্মেন্ট টিইউসির সভাপতি মন্টু ঘোষ ও সাধারণ সম্পাদক জলি তালুকদার স্বাক্ষরিত এ সম্পর্কিত বিবৃতিতে বলা হয়, সভায় এপ্রিল মাসের শতভাগ মজুরি পরিশোধের বিষয়ে শ্রমিকপক্ষ তাদের দাবি উত্থাপন করলেও মালিকেরা যেকোনোভাবে মজুরি কর্তনের বিষয়ে অনড় অবস্থান নিয়েছেন। ফলে এ সভা শ্রমিকদের হতাশ করেছে।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, এই মহামারি পরিস্থিতিতে অতি স্বল্প মজুরি পাওয়া গার্মেন্ট শ্রমিকদের মজুরি কেটে নেওয়া হলে তারা মহাবিপর্যয়ের মধ্যে পড়বে। এ পরিপ্রেক্ষিতে তাঁরা অবিলম্বে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করে যথাসময়ে শ্রমিকদের সম্পূর্ণ মজুরি প্রদানের দাবি জানান।

গত ২৯ এপ্রিল সরকারিভাবে গার্মেন্ট শ্রমিকদের এপ্রিল মাসের বেতনের চল্লিশ শতাংশ কেটে নেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়। গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রসহ অন্যান্য শ্রমিক সংগঠন এবং সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানায়। অব্যাহত প্রতিবাদের মুখে আজ শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রীর সভাপতিত্বে ত্রিপক্ষীয় সভা আহ্বান করা হয়।

সভায় গার্মেন্ট টিইউসির সভাপতি মন্টু ঘোষ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাদেকুর রহমান শামীম, আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক মঞ্জুর মঈন সংগঠনের প্রতিনিধি হিসেবে অংশ নেন। সভার একপর্যায়ে মালিকপক্ষ এপ্রিল মাসের আরও পাঁচ শতাংশ বেতন পরবর্তী মাসের বেতনের সঙ্গে সমন্বয় করে পরিশোধ করবেন বলে অঙ্গীকার করেন। এ সময় গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র এবং ইন্ডাস্ট্রি অল বাংলাদেশ কাউন্সিলের অন্তর্ভুক্ত শ্রমিক সংগঠনগুলো মালিকদের এই অনড় অবস্থানের প্রতিবাদ জানান।

ফলে সভা থেকে কোনো সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়নি।

Comments


আর্কাইভ